মহিলাদের বুদ্ধি


আজকের গল্পটাও মজার।
তবে মহিলারা আবার রাগ করবেন না কিন্তু।
একবার সব মহিলারা পুরুষের বিরুদ্ধে বিদ্রহ করে স্বয়ং ব্রহ্মার কাছে গিয়ে উপস্থিত হলেন।
তারা নারী ও পুরুষের সমানাধিকার নিয়ে ব্রহ্মার কাছে অনেকগুলো দাবি রাখলেন।
তার মধ্যে যে উল্লেখযোগ্য দাবি ছিল, সেটি হল...
বাচ্চাকে ৯ মাস পেটের মধ্যে আমরা ধারণ করি, অনেক ব্যথা-বেদনা সয়ে বাচ্চা প্রসব করি, আর নাম হয় বাপের! লোকে বলে অমুকের বাচ্চা এসব আর চলবে না।
এই দাবি নিয়ে অনেক দীর্ঘ লড়াই হলো, সমাধান সূত্রও বের করার প্রচেষ্টা চলল।
তারপর একসময় একটা সিদ্ধান্তে পৌছানো গেল।
স্থির হল যে, বাচ্চা মহিলারাই প্রসব করবেন, তবে প্রসব বেদনা ভোগ করতে হবে পুরুষদের।
এখন শুধু অপেক্ষার পালা।
এরই মধ্যে খবর পাওয়া গেল যে ফটিকের বৌয়ের নাকি বাচ্চা হবে। নিদৃষ্ট দিনে মানুষের ভিড় লেগে গেল।
ডাক্তারের পুরো প্যানেল ফটিককে ঘিরে বসে থাকলো। সবাই ফটিকের প্রসব বেদনার জন্য ব্যাকুল হয়ে অপেক্ষা করতে লাগলো।
এমন সময় খবর এলো যে, বাইরে ফটিকের ড্রাইভারটা নাকি পেটের ব্যথায় মাটিতে পড়ে কাতরাচ্ছে!
পুরো জনতা আর ডাক্তার দৌড়ে ড্রাইভারের কাছে চলে এলেন। ডাক্তারের অনেক প্রচেষ্টার পর পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে এলো। ড্রাইভারের ব্যথা কমল, আর তখন এদিকে ফটিকের বৌ বাচ্চার জন্ম দিল।
পরের দিন...
সব মহিলারা একত্রিত হয়ে আবার ব্রহ্মার কাছে গেলেন।
নিজেদের ভুল স্বীকার করে বললেন, প্রভু, আগে যেরকম চলছিল, সে রকমই চলতে দিন, সিস্টেম নষ্ট করে লাভ নেই!

0 comments:

Post a Comment